সোমবার, ২০শে জানুয়ারি ২০২০ ইং, ৭ই মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |আর্কাইভ|
নানা কর্মসূচির মাধ্যমে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করে ইবি কতৃপক্ষ
ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
নানা কর্মসূচির মাধ্যমে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করে ইবি কতৃপক্ষ

ইবি প্রতিনিধি:
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করা হয়। নানা কর্মসূচীর মাধ্যমে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করে ইবি কতৃপক্ষ।

সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে প্রশাসন ভবনের সামনে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী অর্ধনমিত জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন, কালো পতাকা উত্তোলন করেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান। পরে প্রশাসন ভবন চত্বর হতে ভাইস চ্যান্সেলররে নেতৃতে শোকর‌্যালি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্মৃতিসৌধে সমবেত হয়। উপস্থিত ছিলেন ভাইস চ্যান্সেলর, প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর, ট্রেজারার, ডিনবৃন্দ, রেজিস্ট্রার, হল প্রভোস্টগন, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে শহিদ স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী। উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা ও রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) জনাব এস. এম. আব্দুল লতিফ। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সমিতি, হল, অনুষদ, বিভাগ, বিভিন্ন পরিষদ, ছাত্র-সংগঠন এবং বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন পর্যায়ক্রমে শহীদ স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করে।
শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন শেষে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং তাঁদের আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

পরে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা। স্বাগত বক্তব্য দেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ।

সভাপতিত্ব করেন আহবায়ক প্রফেসর ড. মোহাঃ জাহাঙ্গীর হোসেন ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ উদ্যাপন কমিটি।

শহিদ বুদ্ধিজীবী এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদদের আত্মার মাগফিরাতের উদ্দেশ্যে, ১৩ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে পবিত্র কুরআনখানি ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

Print Friendly, PDF & Email