বুধবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং, ১৫ই আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |আর্কাইভ|
পরীক্ষার টেবিলে বসবে না ইটিই বিভাগের ১৫৮ শিক্ষার্থী
নভেম্বর ২০, ২০১৯,  ৯:২৭ অপরাহ্ণ
পরীক্ষার টেবিলে বসবে না ইটিই বিভাগের ১৫৮ শিক্ষার্থী

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি:
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার বিভাগের শিক্ষার্থীরা ফরম পূরণ না করে বিভাগ পরিবর্তনের এক দফা দাবি জানিয়ে আন্দালোন চালিয়ে যাচ্ছে।

ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইটিই) বিভাগের ১৪ নভেম্বর ছিল ফরম পূরণের শেষ দিন ছিল। এবং ২৭ নভেম্বর সেমিস্টার পরীক্ষা শুরু হওয়ার নোটিশ দেওয়া হয়। কিন্তু এক দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন চালিয়ে যাবে বলে জানিয়েছে আন্দোলনরত ইটিই বিভাগের ১৫৮ জন শিক্ষার্থী।

তাদের আন্দোলন গত রবিবার (২৭ অক্টোবর) থেকে আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের ইলেকট্রনিক অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইটিই) বিভাগের শ্রেণিকক্ষের সামনে তাদের অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছে।

ওই বিভাগের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, শিক্ষকদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হলে ইটিই বিভাগের চাকরির বাজারে বর্তমান অবস্থান এবং বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইটিইর বিলুপ্তির বিষয়টি স্বীকার করে বিভাগ পরিবর্তন করে এই সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন তারা। কিন্তু টানা ২৪ দিন পার হয়ে গেলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, ‘কেন ইটিই বিভাগের রূপান্তর চাওয়া হচ্ছে এসব যৌক্তিকতা তুলে ধরে সংবাদ দর্পণকে জানান’, “ইইই বিভাগের সিলেবাসের সাথে ইটিই বিভাগের সিলেবাসে প্রায় ৮৫% মিল রয়েছে। তা সত্ত্বেও চাকরি ক্ষেত্রে বৈষম্যের শিকার হতে হচ্ছে ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীদের। বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) ও পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি) কর্তৃক গৃহীত পরীক্ষায় ইটিই বিভাগের জন্য স্বতন্ত্র কোনো সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়নি। সে জন্য ইইই বিভাগের প্রণীত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হয়।

ইটিই-এর বিষয়ভিত্তিক অধিকাংশ চাকরিগুলোতে ইটিই-এর গ্রাজুয়েটদের পরিবর্তে ইইই গ্রাজুয়েটদের থেকে আবেদন আহ্বান করে। বিষয়ভিত্তিক বিকল্প হিসেবে ইইই বিভাগকে গুরুত্ব দেয়া হয় কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ইটিই বিভাগের গুরুত্ব পাওয়ার কথা। এখানেও বৈষম্যের শিকার হচ্ছি আমরা।”

এ বিষয়ে ইটিই বিভাগের চেয়ারম্যান ও ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. মো: শাহজাহান জানান, “ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা এক দফা দাবি নিয়ে আন্দোলন করে আসছে। আমি তাদেরকে ক্লাসে ফেরাতে চেষ্টা করেছি। সারা দেশে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে এখনো ইটিই বিভাগ চলমান রয়েছে। ওই সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী যদি পাস করে চাকরি পায় তাহলে আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পাবো না কেন।”

Print Friendly, PDF & Email
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

ফেসবুকে আমরা

Facebook Pagelike Widget
আরও পড়ুন